মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ

 

 

   

                                                    বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ

 

বাল্য বিবাহ আইন ১৯২৯

­­বাল্য বিবাহ বলতে কী বুঝায় ?

 বাল্য বিবাহ বলতে ঐ বিবাহ কে বুঝায় যে বিবাহে বর কনের যে কোন একজন বয়সের দিক দিয়ে শিশু বা নাবালক । অর্থা বরের বয়স ২১ বছরের নিচে এবং কনের বয়স ১৮ বছরের নিচে ।

 

বাল্য বিবাহ সংগঠিক হলে তার ফলাফল কী?

আইনে বাল্য বিবাহ নিষেধ করা সত্বোও যদি তা অনুষ্ঠিত হয়, তবে তা অবৈধ নহে । আদালত ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ৪৯ ধারা অনুসারে নাবিলিকার কনেটিকে তার স্বামীর সাথে যেতে দিতে পারে, যদিও স্বামী এ আইনের অধীনে শাস্থি পাবে । -২২ডিএলআর (এসসি)২৯৮ ।

 

স্ত্রী নাবালিকা স্বামী সাবালক, স্বামীর শাস্থি কী?

কোন ব্যক্তি যদি স্বেচ্ছায় বা নিজ ইচ্ছায় ১৮ বছরের কম বয়সী কোন শিশু বা নাবালক কন্যাকে বিবাহ করে তাহলে সে আইনগতভাবে শাস্তি পাবে । শস্থির পরিমাণ এক মাস পযর্ন্ত বিনাশ্রম কারাদন্ড বা এক হাজার টাকা অর্থদন্ড অথবা উভয় দন্ড ।

 

বাল্য বিবাহের ক্ষেত্রে স্বামী ও স্ত্রী নাবালক হলে কী ধরনের শাস্তি হবে ?

স্বামী ও স্ত্রী যদি নাবালক হয় তবে তাদের কোন শাস্থি হবেনা । যারা বাল্য বিবাহের আয়োজন করেছেন কাদের শাস্তিহবে ।

 

বাল্য বিবাহের দায়ে নাবালিকা কনের শাস্তির কোন বিধান আছে কিনা ?

কোন ব্যক্তি বাল্যবিবাহ অনুষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা বা পরিচালনা করলে সে ব্যক্তি একমাস পর্যন্ত বিনাশ্রম কারাদন্ড বা এক হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে ।

 

নির্ধারিত বয়সের চেয়ে কম বয়সী ছেলে মেয়ের মধ্যে বিবাহ হলে বিবাহটি বাতিল হবে কিনা?

বিবাহটি অবৈধ বা বাতিল হবে না, কিন্তু তা শাস্তি যোগ্য বাল্য বিবাহের মামলা কোন আদালতে দায়ের করতে হবে?

বাল্য বিবাহ ফৌজদারী অপরাধ । ফৌজদারী আদালতে মামলা দায়ের করতে হবে ।